অবৈধভাবে টিসিবি’র পণ্য গুদামজাত করায় অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের একজনকে আটক ও বিপুল পরিমাণ টিসিবি’র পণ্য জব্দ করেছে র‍্যাব-৭,চট্টগ্রাম।

0 ৩০০,৬১৭

অবৈধভাবে টিসিবি’র পণ্য গুদামজাত করায় অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের একজনকে আটক ও বিপুল পরিমাণ টিসিবি’র পণ্য জব্দ করেছে র‌্যাব-৭,চট্টগ্রাম।

র‌্যাব-৭,চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে,আবদুল আজিজ সুমন নামের একজন অসাধু ব্যবসায়ী টিসিবির পন্য(সয়াবিন তেল,ডাল ও চিনি)খোলা বাজারে সাধারণ মানুষের নিকট বিক্রি না করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় অবৈধভাবে চট্টগ্রাম মহানগরীর বায়েজীদ বোস্তামী থানাধীন ০৭নং ওয়ার্ডস্থ আতুরের ডিপু সংলগ্ন আমিন টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ভেতরে ভাড়া করা গোডাউনে মজুদ করে রেখেছে।

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ২০ই আগস্ট রোজ শনিবার বিকাল ৩টা ৩০মিনিটে র‌্যাব-৭,চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে আসামী আব্দুল আজিজ সুমন(৩৪)আটক করে।

আটককৃত আবদুল আজিজ সুমনের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী উপজেলার এনায়েতপুরে।পিতার নাম মৃত সুলতান আহম্মেদ।বর্তমানে চট্টগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন বনানী-৩নং ওয়ার্ডে বসবাস করেন আটককৃত আবদুল আজিজ সুমন।

পরবর্তীতে উপস্থিত স্বাক্ষীদের সম্মুখে গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে ও তার দেখানো শনাক্ত মতে উক্ত গোডাউনের ভিতর থেকে টিসিবি লোগোযুক্ত ৩৯৮ লিটার সয়াবিন তেল,২০০ কেজি মসুর ডাল এবং ২৫০ কেজি চিনি জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী আব্দুল আজিজ সুমনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায় এবং তার ভাষ্যমতে,সে পলাতক আসামী টিসিবি’র ডিলার বাবু(৩৫)নএর সহায়তায় দীর্ঘদিন যাবৎ টিসিবি’র পন্য সংগ্রহ করে কালো বাজারের মাধ্যমে বর্ণিত গোডাউনে মজুদ রেখে টিসিবি’র লোগো সম্বলিত সয়াবিন তৈলের বোতল থেকে খালি বোতলে বোতলজাত করে এবং চিনি ও ডাল সাধারণ প্যাকেটে প্যাকেটজাত করে বিক্রয় করে আসছে।

উল্লেখ্য যে,সরকার কর্তৃক ভর্তুকি মূল্যে যেখানে টিসিবির সয়াবিন তেল ১১০ টাকা,ডাল ৬৫ টাকা এবং চিনি ৫৫ টাকায় খোলা বাজারে ভোক্তাদের মাঝে বিক্রয়ের কথা থাকলেও আটককৃত অসাধু ডিলার ও তার ব্যবসায়ী তা না করে তারা নিজেদের ভাড়াকৃত গোডাউনে অবৈধভাবে মজুদ করে পরবর্তীতে কালো বাজারের মাধ্যমে অন্যান্য সাধারণ পণ্যের ন্যায় নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্যে টিসিবি’র পণ্য বিক্রয় করে অসহায় সাধারণ ভোক্তাদের ক্ষতিগ্রস্ত করে আসছে।যার দরুণ সাধারণ ভোক্তাগণ দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পায় না।এই ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গ্রেফতারকৃত আসামী সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.