সত্যের খোঁজে নির্ভূল অনুসন্ধানী

খুটাখালী কিশলয় স্কুলের শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে লাখ টাকা ফি আদায়।

0

করোনার টিকা দিতে উপজেলার মোহনায় যাতায়াত ও নাশতা খরচের নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাথাপিছু ১০০ করে টাকা নিয়েছে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম।

এ নিয়ে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের ক্ষোভের মুখে পড়েছেন তিনি। সংশ্লিষ্টরা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া টাকা ফেরত চেয়ে ইউএনও বরাবর নালিশও করেছেন।

জানা গেছে, ১২ বছরের বেশি বয়সী সব শিক্ষার্থীর বিনা মূল্যে করোনার টিকা দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার খুটাখালী কিশলয় স্কুলের ৮৬৯ জন শিক্ষার্থীকে উপজেলার মোহনায় নিয়ে টিকা দেওয়া হয়।

আর এই টিকা দেওয়াকে পুঁজি করে প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে পরিবহন ও নাশতা খরচের নামে ১০০ করে লাখের বেশি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ওঠে প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

যাতায়তের বাসভাড়ায় মাত্র ৩০ হাজার টাকা গাড়ী ভাড়া ও ১০ হাজার টাকা বিবিধ খরচ দেখিয়ে বাকী টাকা পুরোই পকেটস্থ করেন প্রধান শিক্ষক।

এমনতর ঘটনা জানাজানি হলে এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে এবং শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা প্রধান শিক্ষকের কাছ খেকে কৈফিয়ত চাইতে স্কুলে গেলে বুধবার স্কুল বন্ধ ঘোষণা দেয় কতৃপক্ষ।

অপরদিকে করোনার টিকা নিতে এসে ভোগান্তির শিকার হয়েছে শিক্ষার্থীরা। নানা অব্যবস্থাপনার কারণে শিক্ষার্থীরা ভোগান্তিতে পড়েন। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যেও ক্ষোভ দেখা দেয়।

একাধিক শিক্ষার্থী জানান, নির্ধারিত সময় থেকে প্রায় দেড় ঘণ্টা আগে তারা আসেন। বসার ব্যবস্থা ও পর্যাপ্ত টয়লেট না থাকায় তাদেরকে কষ্ট করতে হয়। এমনকি যাতায়াত ও নাস্তা খরচের নামে ১শ টাকা নেয়া হলেও স্কুল কতৃপক্ষ তা ব্যবস্থা করেননি।

জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে শুধু মাত্র পরিবহন খরচের জন্য টাকা নেওয়া হয়েছে। ঐ টাকা যাতায়ত ও ব্যবস্থাপনায় খরচ করা হয়েছে। আরো ঘাটতি আছে বলে তিনি দাবী করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান ত্রিপুরা বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা উত্তোলনের বিষয়টি আমি জানিনা, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.