রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০১ অপরাহ্ন

ভাসানচর ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসা এগার রোহিঙ্গা আটক সন্দ্বীপে।

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ১১৫ বার পঠিত

রহিম মোহাম্মদঃ ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা এগার জন রোহিঙ্গাকে সন্দ্বীপ উপকূলে আটক করেছে স্থানীয় জনগন।মঙ্গলবার ভোর ৫ টার দিকে সন্দ্বীপের পশ্চিমে মেঘনা চ্যানেল পাড়ি দিয়ে দ্বীপের রহমতপুর উপকূলে পৌঁছলে স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে খবর পেয়ে উৎসুক জনতা তাদের আটক করে পুলিশে খবর দেয়। আটক রোহিঙ্গাদের মধ্যে একজন দালাল ছাড়াও এক পরিবারেরই নয় জন সদস্য রয়েছে,তাদের মধ্যে শিশু- ৩,মহিলা-৬,এ ছাড়া গ্রুপে আরো একজন যুবক রয়েছেন।আটক ইয়াছিন আরাফাত(২৫) নামের দালালের সাথে ২৫৫০০০ টাকার বিনিময়ে তাদেরকে কক্সবাজারে পৌঁছে দেয়ার চুক্তি হয়েছিল।গত এক বছর আগে কুতুপালং থেকে ভাসানচর ক্যাম্পে স্থানান্তর করা হয়েছিল এ শরনার্থীদের।সন্দ্বীপ থানা পুলিশের এস. আই সোহেল জানান,”এরা মূলতঃ অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় যেতে কক্সবাজার যাচ্ছিল,তাদেরকে ভাসানচরের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হবে”।

আটক রোহিঙ্গা মোহছানা(২৫) জানান,বার্মা সেনাদের অত্যাচারের ভয়ে বছর দেড়েক আগে তারা মালয়েশিয়া পাড়ি দিতে চেয়েছিল।সেখানে তার স্বামী ও অন্য আত্নীয়রা চাকুরী করেন।কিন্তু সাগরে নৌবাহিনীর হাতে ধরা পড়ার পর তাদের কুতুপালং ক্যাম্পে আশ্রয় দেয়া হয়।পরে বছরখানেক আগে তারা ভাসানচরে আসেন।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন-ভাসানচরে তাদের থাকা-খাওয়া সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল।কিন্তু স্বামী-স্বজনরা সাথে নেই বিধায় তাদের ভাল লাগছিল না।আটক নুর হাবা(২৩) জানান,মালেশিয়া থেকে বিকাশের মাধ্যমে তাদের খরচের টাকা এসেছে।তিনি অভিযোগ করে জানান, “সন্দ্বীপে চ্যানেল পারাপারের জন্য নৌকার মাঝি ৩৫০০০ টাকা নগদ নেয়ার পরও আমাদের কাছ থেকে আধাভরির চেয়ে বেশী সোনা-দানা নিয়েছে,ক্যাম্প থেকে বের করতে দালাল নাকি ৭০০০০ টাকা নিয়েছে।আমাদের কক্সবাজার পৌঁছাতে শিশুদের বাবত জনপ্রতি ১৫০০০ ও বড়দের জন্য জনপ্রতি ৩০০০০ টাকা দেয়ার কথা ছিল”।

দালাল ইয়াছিন আরাফাত জানায়,ভাসানচরের নিরাপত্তা দেয়াল ডিঙ্গিয়ে সেখানকার অন্য এক দালালকে টাকা দেয়ার বিনিময়ে গভীর রাতে তাদেরকে ক্যাম্প থেকে বের করে আনা হয়।ভোর ৪ টার দিকে তারা ইঞ্জিন চালিত নৌকায় সন্দ্বীপের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।২০১২ সালে বার্মা থেকে শরনার্থী হিসেবে আসে এ দালাল।

উল্লেখ্য,ইতোপূর্বে ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালিয়ে আসা সন্দ্বীপ আজিমপুরে একজন এবং তার কয়েকদিনের মধ্যে মাইটভাঙ্গা এলাকা থেকে আরো তিনজন রোহিঙ্গাকে স্থানীয় জনতা আটক করেছিলো।তাদেরও সন্দ্বীপ থানা পুলিশের মাধ্যমে ভাষানচর ক্যাম্পে ফেরৎ পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Jagroto Chattogram
banglawebs999995