যমুনা টেলিভিশনের সাংবাদিক আল আমিন শিকদার ও ভিডিওগ্রাফার আসাদুজ্জামান লিমনের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত।

0 ৫১০,১৫৬

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের(সিইউজে)সদস্য ও যমুনা টেলিভিশনের সাংবাদিক আল আমিন শিকদার ও ভিডিওগ্রাফার আসাদুজ্জামান লিমনের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত।গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম আদালত চত্বরে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে আইনজীবী কর্তৃক যমুনা টিভির দুইজন সাংবাদিক হামলার শিকার হয়।

এই ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনার প্রতিবাদে ১৮ই আগষ্ট বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শামসুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সভাপতি আলী আব্বাস,সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব মহসিন কাজী, সিইউজের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমেদ ও রিয়াজ হায়দার চৌধুরী,সিইউজের সিনয়র সহ-সভাপতি রতন কান্তি দেবাশীষ,সহ-সভাপতি অনিন্দ্য টিটো,যুগ্ম সম্পাদক সবুর শুভ,বিএফইউজের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী,বিএফইউজে সদস্য আজহার মাহমুদ,টিভি ইউনিট প্রধান মাসুদুল হক,চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নাসির উদ্দিন তোতা,সাধারণ সম্পাদক লতিফা আনসারী রুনা,টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সফিক আহমেদ সাজীব, ফরিদ উদ্দিন খোকন,যমুনা টিভির ব্যুরো প্রধান জামশেদ চৌধুরী,ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রাজেশ চক্রবর্তী,বাংলাদেশ ক্রাইম সাংবাদিক সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াদুল মামুন সোহাগ,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি কে এম রুবেল,বৃহত্তর চট্টগ্রাম উন্নয়ন সংগ্রাম কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক শুক্কুর সহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন।

এই সময় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ একাত্মতা ঘোষণা করেন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটি কেন্দ্রীয় কমিটির চট্রগ্রাম বিভাগীয় নেতৃবৃন্দ সহ বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম,বাংলাদেশ ক্রাইম সাংবাদিক সংগঠন,চট্রগ্রাম জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা,চট্রগ্রাম রিপোর্টার্স ক্লাব ও অনলাইন প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ।

সাংবাদিক নেতারা বলেন,অবিলম্বে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে,সেই সাথে সারা বাংলাদেশে সাংবাদিক হত্যা,হামলা,মামলা ও নির্যাতনের শিকার সাংবাদিকদের সুরক্ষা আইনের ব্যবস্থা ও দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.