রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৭ অপরাহ্ন

লিভারপুলের ৩০ বছরের অপেক্ষার অবসান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০
  • ২৭১ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্কঃ ছয় ম্যাচ আগে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা নির্ধারিত হয়ে গেলেও লিভারপুলের হাতে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা তুলে দেয়া হয়েছে বুধবার। চেলসি ম্যাচের পর দলটির কিংবদন্তি কেনি ডালগ্লিস উত্তরসূরিদের হাতে শিরোপা তুলে দেন।

বুধবার রাতে আট গোলের রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে ৫-৩ ব্যবধানে চেলসিকে হারিয়েছে তিন দশকের অপেক্ষা ঘুচিয়ে শিরোপা জেতা লিভারপুল। শিরোপা উদযাপনেও তাই হতাশার ছাপ পড়েনি লিভারপুলের।রেকর্ড সাত ম্যাচ হাতে রেখে লিগ শিরোপা অনেক আগে নিশ্চিত হলেও ট্রফিটি এতদিন বুঝে পায়নি লিভারপুল। চেলসি ম্যাচের পর পেল।

রাতের ম্যাচটিতে চেলসিকে নিয়ে শুরুতে রীতিমতো ছেলেখেলা করেছে লিভারপুল। ম্যাচের প্রথমার্ধেই তারা করে ফেলে তিন গোল, যার একটি শোধ করতে পারে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধে আরও দুই গোল করে চ্যাম্পিয়নরা, চেলসিও করে দুই গোল। কিন্তু প্রথমার্ধে তিন গোল হজম করার মাশুল গুনতে হয়েছে তাদের।

ম্যাচে প্রথম গোলের সুযোগটা পেয়েছিল চেলসিই। অষ্টম মিনিটের মাথায় লক্ষ্যভ্রষ্ট হয় ম্যাসন মাউন্টের হেড। ফলে লিড নেয়া হয়নি লন্ডনের ক্লাবটির। তবে সুযোগ হাতছাড়া করেনি চেলসি। ম্যাচের ২৩ মিনিটে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে জোরালো শট নেন নাবি কেইটা, ক্রসবারের ভেতরের অংশে লেগে বল জড়িয়ে যায় জালে।

দ্বিতীয় গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয় আরও ১৫ মিনিট। এবার দর্শনীয় এক ফ্রি-কিকে স্কোরশিটে নাম তোলেন ট্রেন্ট অ্যালেক্সান্ডার আরনল্ড। দুই গোলে এগিয়ে থাকা লিভারপুলের আনন্দ আরও বাড়িয়ে দেন জর্জিনিও উইজনাল্ডাম, ৪৩ মিনিটের সময় সুযোগসন্ধানী ফিনিশিংয়ে তৃতীয় গোলটি করেন তিনি।

তিন গোলে পিছিয়ে পড়া চেলসি প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে শোধ করে একটি গোল। উইলিয়ানের শট ঠিকভাবে বিপদমুক্ত করতে পারেননি লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার। ফিরতি বল পেয়ে সেটি জালের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেন ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার অলিভার জিরুড। ফলে স্কোরলাইন হয় ৩-১।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে এটিকে আরও বাড়ান রবার্তো ফিরমিনো। ৫৫ মিনিটের মাথায় অ্যালেক্সান্ডার আরনল্ডের ক্রসে দারুণ এক হেড করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ফিরমিনো। ম্যাচের স্কোর তখন ৪-১, তবু চেষ্টার কমতি রাখেনি চেলসি। ফল পায় ৬১ মিনিটের সময়, ট্যামি আব্রাহামের শটে ব্যবধান কমে হয় ৪-২।

এর ১২ মিনিট পর চেলসির হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন ২১ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচ। জমে ওঠে ম্যাচ। আরেকটি গোলের খোঁজে মরিয়া হয়ে ওঠে চেলসি। কিন্তু সেটি আর পাওয়া হয়নি তাদের। উল্টো ম্যাচের ৮৪ মিনিটের সময় চেলসির জালে শেষ গোলটি করেন অ্যালেক্স ওক্সল্যাড চেম্বারলিন।

এ পরাজয়ের ফলে ৩৭ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে নেমে গেছে চেলসি। সমান ৬৩ পয়েন্ট নিয়েই গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকার সুবাদে তিন নম্বরে রয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এক পয়েন্ট কম নিয়ে পাঁচ নম্বরে রয়েছে লিস্টার সিটি। এ তিন দলের মধ্যেই চলছে ইউসিএলের টিকিট পাওয়ার লড়াই।
সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Jagroto Chattogram
banglawebs999995