সন্দ্বীপ পৌরসভা আওয়ামীলিগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উদযাপন

0 ১৪২

বাদল রায় স্বাধীনঃ জাতীয় শোক দিবস ২০২০ জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা,দোয়া মাহফিল,শহীদ মিনারে শ্রদ্ধান্জলী প্রদান সহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছে সন্দ্বীপ পৌরসভা আওয়ামীলিগ।

সকালে শহীদ বেদিতে পুস্পমাল্য অর্পন ও কালো ব্যাচ ধারনের পর বিকাল ৩ ঘটিকার সময় সন্দ্বীপ উপজেলাস্থ কবি আব্দুল হাকিম পাবলিক অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎবরন ও খুনী ঘাতকদের নিন্দা জ্ঞাপন এবং অনেক ঘাতকের মৃত্যুদন্ড নিশ্চিত হওয়ায় শোকরিয়া জ্ঞাপন ও বাকি খুনীদের দ্রুত বিচার বাস্তবায়নের উপর জোর দিয়ে বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য প্রদান করেন।

উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সন্দ্বীপের উন্নয়নের কান্ডারী ও সফল সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা।বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মাষ্টার শাহজাহান বিএ ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাঈন উদ্দিন মিশন।সভায় সভাপতির আসন অলংকৃত করেন পৌরসভা আওয়ামীলিগের নন্দিত সভাপতি ও তারুন্যের অহংকার মোক্তাদের মাওলা সেলিম।

অালোচনা সভার শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামীলিগের সাধারন সম্পাদক সফিকুল মাওলা সফিক। সভা পরিচালনা করেন পৌরসভা আওয়ামীলিগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোঃ ওমর ফারুক।সভায় সন্মানীত অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট্য আওয়ামীলিগ নেতা যথাক্রমে আলাউদ্দীন বেদন,অধ্যক্ষ জামিল ফরহাদ,সিরাজুল মাওলা চৌধুরী,শাহেদ সারোয়ার শামীম ।অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পৌরসভা আওয়ামীলিগের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক ফসিউল আলম,পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ ফয়সাল উদ্দিন,মোঃ টিপন প্রমুখ।

প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি বলেন বর্বোরোচিত হত্যাকান্ডের বিচার বন্ধে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করে দীর্ঘ কয়েক যুগ জাতিকে কলংকের কালিমায় ঢেকে রেখেছিলো।কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনা সকল রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে সে কালো আইন বাতিল করে দায়ী খুনীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়ে জাতিকে কলংকমুক্ত করেছেন।বাকি যারা বিভিন্ন দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রশ্রয়ে আছে তাদের দ্রুত বিচারের আওতায় আনবেন।

অন্যান্য বক্তারা বলেন বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা করেও ঘাতকেরা এখনো বসে নেই।বার বার সুযোগ বুঝে তারা মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকেও হত্যার পরিকল্পনা করে আওয়ামী রাজনীতিকে চীরতরে বন্ধ করে দিতে চেয়েছে।কিন্তু জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু মানুষের মনে যে আন্দোলন সংগ্রামের বীজ বপন করে গেছেন সেই দুরদর্শী নেতাদের নেতৃত্বে তাদের সেই পরিকল্পনা নশ্বাৎ হয়ে গেছে।তাই এই মুজিব বর্ষে সকলে সক্রিয় ও সচেতন থেকে রাজনৈতিক অঙ্গনে স্ব-স্ব অবস্থানে থেকে জননেত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.