সৈকতে মাহাবুব সিন্ডিকেটের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ ব্যবসায়ীরা

0 ১৫৪

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সমুদ্র সৈকত এলাকায় ভ্রাম্যমাণ দোকান ভাঙচুর করেছে বীচ কর্মী পরিচয়ধারী এক সন্ত্রাসী। সেই সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে বাঁধা দেয়ায় দোকানদারকে পিটিয়ে আহত করেছে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।১৭ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৭টার দিকে সমুদ্র সৈকত এলাকার হোটেল সী ওয়ার্ল্ড সড়কে (কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পাশ)-এ ঘটনা ঘটে।সূত্রে জানা যায়, পর্যটন মৌসুমে সৈকতকে ঘিরে নানা ধরণের ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন স্থানীয় বেকার যুবকরা। এমনই একজন সদর উপজেলার ভারুয়াখালির নুরুল হাকিম (২৭)। তিনি প্রায় ১ মাস ধরে মাছ ভাজার ব্যবসা করে আসছেন। আর এ ব্যবসা করতে বীচকর্মী পরিচয়দানকারী শহরের কলাতলীর চন্দ্রিমা ঘোনা এলাকার মৃত কবির আহমদের পুত্র মোহাম্মদ মাহাবুব আলম (২৭) কে প্রতিদিন (শুক্রবার ছাড়া) ১০০ টাকা এবং শুক্রবার দিন ১৫০ টাকা হারে চাঁদা দিয়ে আসছেন। কিন্তু ১৭ জানুয়ারী ব্যবসা না হওয়ায় নিয়মিত চাঁদার চেয়ে কম চাঁদা নেয়ার অনুরোধ করে ৭০ টাকা দেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে বীচ কর্মী পরিচয়দানকারী মাহাবুবের নেতৃত্বে তার সিন্ডিকেট ঔদ্যত্বপূর্ণ আচরণ করে দোকান ভাঙচুর করে এবং ভ্রাম্যমান দোকানদার হাকিমকে মারধর করে আহত করে। আহত হাকিম ভারুয়াখালির ৩নং ওয়ার্ডের পশ্চিম মাঝর পাড়ার নুরুল আজিমের ছেলে।এদিকে এ ঘটনায় বাড়াবাড়ি না করে নিয়মিত চাঁদা দিয়ে ব্যবসা করতে বলেন এবং তা অমান্য করলে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন।সূত্রে আরো জানা যায়, মাছ ভাজার ভ্রাম্যমান দোকানদার হাকিমের দোকান ভাংচুর ও হামলার এমন ঘটনা নতুন না এই চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী মাহবুবের। এর চেয়ে আরো জঘন্যতম ঘটনার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে, কিন্তু সাধারণ হকাররা তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে রাজি না। পুরো সমুদ্র সৈকত ও আশপাশের সাধারণ ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ীরা বীচকর্মী নামক চাঁদাবাজ মাহাবুব বাহিনীর কাছে এক প্রকার জিম্মি হয়ে আছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বীচকর্মী ইনচার্জ খুরশেদ আলম জানান, মাহাবুব আলম কথিত বীচকর্মী পরিচয়দানকারী চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী সম্পর্কে আমি কিছুই জানিনা এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান।

আপনার মতামত লিখুন

Your email address will not be published.